মালেকা বেগম Maleka Begum

মালেকা বেগম (জ. ১৯৪৪) বাংলাদেশের একজন বিশিষ্ট নারীনেত্রী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলাভাষা ও সাহিত্যে অনার্স (১৯৬৫), এম.এ. (১৯৬৬) এবং সমাজবিজ্ঞানে এম.এ. (১৯৬৮), ডিগ্রি অর্জন করেন। এম.ফিল ১ম পর্ব (১৯৯৩) শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘যৌতুকের সামাজিক রূপ ও বাংলাসাহিত্যে তার প্রতিফলন’ বিষয়ে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেছেন (২০০৪)।

ষাটের দশকের ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম নেত্রী। নারী আন্দোলনে যুক্ত হন ১৯৬৮ সালে। মুক্তিযুদ্ধের সময় সংগঠক ছিলেন। ১৯৬৯ সালে কবি সুফিয়া কামালের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত মহিলা সংগ্রাম পরিষদ ও ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত পূর্বপাকিস্তান মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা ছিলেন। ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত সভানেত্রী কবি সুফিয়া কামালের সঙ্গে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা হিসেবে নারী আন্দোলনের কাজ করেছেন। নারী উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ হিসেবে তিনি বেইজিং বিশ্বনারী সম্মেলনের (১৯৯৫) আগে ও পরে বাংলাদেশের নারী উন্নয়ন, সমতা ও শান্তির লক্ষ্যে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগের সাথে যুক্ত আছেন। বর্তমানে ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ের উইমেন্স স্টাডিজ বিভাগে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে সম্পৃক্ত রয়েছেন। মালেকা বেগম লিখছেন ষাটের দশক থেকে। তাঁর লেখা বইয়ের সংখ্যা ২০। নারী ও মানবাধিকার আন্দোলনের কাজে সফর করেছেন ১২টি দেশে। জাতীয় দৈনিকগুলোতে নিয়মিত লিখছেন। বেতার-টিভিতে নিয়মিত আলোচক। ‘আমি নারী’ চলচ্চিত্রের স্ক্রিপ্ট লেখক। সুফিয়া কামালের দুটি গল্পের নাট্যরূপ দিয়েছেন বাংলাদেশ টেলিভিশনে।

পেশাগত জীবনে ছিলেন বাংলা একাডেমীর গবেষক, কনসার্ন উইমেন ফর ফ্যামিলি প্লানিং-এর মাঠকর্মী, সচিত্র সন্ধানীর নির্বাহী সম্পাদক, গণসাহায্য সংস্থার নারী উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ, প্রকৃতি (পাক্ষিক)-এর নির্বাহী সম্পাদক।

ব্যক্তিগত জীবনে এক মেয়ে ও এক ছেলের মা। নাতি-নাতনীর নানী-দাদী। স্বামী মতিউর রহমান দৈনিক প্রথম আলো-র সম্পাদক। মা : ফাহিমা বেগম (প্রয়াত); বাবা আবদুল আজিজ (প্রয়াত)